COVId 19 – এর প্রথম ঔষধ প্রয়োগ করা হলো মানবদেহে

0
753

COVID 19 – এর প্রথম ঔষধ প্রয়োগ করা হলো মানবদেহে

 

এই ভ্যাকসিনটি আবিষ্কার করেছেন অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির জেনার ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীরা। এ গবেষণায় নেতৃত্ব দিচ্ছেন প্রফেসর সারাহ গিলবার্ট (Sarah Gilbert)।

প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষ করে ভ্যাকসিনটিকে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর্যায়ে তিনি নিয়ে এসেছেন। বলতে গেলে চার বছরের কাজ চার মাসেই করে ফেলেছেন।

শিম্পাঞ্জি থেকে পাওয়া এক বিশেষ ধরনের এডেনোভাইরাসকে (adenovirus) জেনেটিক্যালি মডিফাইড করে এই নুতন ভ্যাকসিনটি বানানো হয়েছে। এটি করোনাভাইরাসের স্পাইক গ্লাইকোপ্রোটিনকে টার্গেট করবে যাতে মানবদেহের এন্টিবডি এই স্পাইকগুলোর সাথে যুক্ত হয়ে সেগুলোকে অকেজো করে দিতে পারে। করোনাভাইরাসের স্পাইকগুলো হলো মানুষকে ঘায়েল করার মূল অস্ত্র। স্পাইক গ্লাইকোপ্রোটিনগুলো কাজ না করলে করোনাভাইরাস মানুষকে আর আক্রমণ করতে পারবে না। করোনাভাইরাস দুর্বল হয়ে যাবে। মানুষের অ্যান্টিবডি তখন করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়ী হবে।

প্রফেসর গিলবার্টকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিলো, তিনি কতটা আশাবাদী তাঁর এই নতুন ভ্যাকসিন নিয়ে। তিনি বলেছেন, তিনি শতকরা ৮০ ভাগ আশাবাদী। বাকিটা জানা যাবে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর। ট্রায়াল শেষ হতে প্রায় তিন সপ্তাহ সময় লাগবে। তারপর মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে এই ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা সম্বন্ধে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

যদি মানবদেহে এর পরীক্ষা সফল হয় তাহলে এই ভ্যাকসিনটি বাণিজ্যিক উৎপাদনে যাবে বলে জানানো হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই এই ভ্যাকসিনের এক মিলিয়ন ডোজ উৎপাদিত হবে এবং মানুষকে এর টিকা দেওয়া হবে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের সাতটি কমার্শিয়াল ফ্যাসিলিটিতে এই ভ্যাকসিন উৎপাদন হবে বলে খবরে প্রকাশ করা হয়েছে। যদি সবকিছু ঠিকঠাক মতো চলে তবে এ বছর শেষ হওয়ার আগেই ভ্যাকসিনটির এক বিলিয়ন ডোজ তৈরি হয়ে যাবে বলে আশা প্রকাশ করা হয়েছে। সারা পৃথিবীর লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে পৌঁছে যাবে এই ভ্যাকসিন। ‌ দুঃখের দিনে নিঃসন্দেহে এটি একটি আশা।

মানুষ তো আশা নিয়েই বেঁচে থাকে। করোনার এই দুর্যোগময় সময়ে আশার আলো দেখতে দোষ কোথায়? আমি আশাবাদী মানুষ। প্রফেসর গিলবার্ট এবং তাঁর টিমের শতভাগ সাফল্য কামনা করছি। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে আরও বেশ কয়েকটি করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ চলছে। এর কোনো কোনোটা ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর্যায়ে চলে এসেছে। বিজ্ঞানীরা বসে নেই। অহর্নিশ কাজ করে যাচ্ছেন। ‌আসুন আমরা সবাই মিলে তাঁদের সবার কাজের সফলতা কামনা করি।

-সংগৃহীত।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here